শিশু নির্যাতনকারী সেই নেতা গ্রেফতার

ক্রাইসবার্তা রিপোটঃ    কুমিল্লার মুরাদনগরে মায়ের সামনে শিশু ছেলেক হাত-পা বেঁধে নির্যাতনকারী আওয়ামী লীগ ও ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের নেতা আবু তাহেরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে নারায়ণগঞ্জ থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

মুরাদনগর থানার ওসি মনজুরুল আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গত বুধবার উপজেলার দারোরা ইউনিয়নের কাজিয়াতল গ্রামের পূর্বপাড়ায় মায়ের সামনে রাজু চন্দ্র নামে এক শিশুকে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন করেন আবু তাহের।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাজুর বড় ভাই সজল চন্দ্র বিশ্বাস মাতব্বর আবু তাহেরকে আসামি করে কুমিল্লার মুরাদনগর থানায় মামলা করেন।

আবু তাহের (৬১) একই গ্রামের মৃত আবিদ আলীর ছেলে। তিনি দারোরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের আমির। দুই দলের কমিটিতে পোস্ট রয়েছে তার।

নির্যাতনের একটি ভিডিও ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

নির্যাতনের শিকার ওই কিশোর কাজিয়াতল গ্রামের রাখাল চন্দ্রের ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, বুধবার বিকালে কোনো কারণ ছাড়াই হাত-পা বেঁধে রাজু চন্দ্রকে মারধর করেন মাতব্বর আবু তাহের। বাধা দিয়ে রুখতে না পেরে সেই নির্যাতনের দৃশ্য দাঁড়িয়ে দেখেছেন রাজুর মা।

ঘটনাটি উপস্থিত কেউ মোবাইলে ধারণ করে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। একদিনের মধ্যে নির্যাতনের ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে যায়।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, জামা-কাপড় খুলে রাজুকে হাত-পা বেঁধে প্রচণ্ড শীতের মধ্যে মাটিতে ফেলে রাখা হয়েছে। এই অবস্থায়ই তার মুখে ও বুকে লাথি মেরে চলছেন তাহের।

নির্যাতনের শিকার রাজুর ভাই সজল চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, ভাইয়ের ওপর এমন অমানবিক আচরণের বিচার চেয়ে আমরা এলাকার অন্যান্য মাতব্বরদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে এখন ক্লান্ত। আবু তাহেরের বিচার চেয়ে আমি মুরাদনগর থানায় মামলা করেছি।

এ বিষয়ে আবু তাহেরের ভাষ্য, রাজু তার পরিবারে অশান্তি সৃষ্টি করছে। সে নিজ ঘরে ভাঙচুর করে। পরে আমি তাদের বাড়ি গেলে আমাকে দেখে বিশ্রিভাবে গালাগাল করে। তা শুনে রাগান্বিত হয়ে শাসনের জন্য আমি তাকে মারধর করেছি।

Check Also

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আইসিইউতে

ক্রাইমবার্তা রিপোট : করোনাভাইরাসে আক্রান্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে রাজধানীর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *